হিন্দুরা কেমন হয়? হিন্দু চরিত্র বিশ্লেষণ -১ম পর্ব

35 Shares

হিন্দুরা কেমন?

প্রথম পর্ব

হিন্দুরা হিন্দুদের মতই হবে এটাই সহজ উত্তর কিন্তু আমার কাছে হিন্দুরা একটু ভিন্ন রকম।

প্রথমে বলি গোঁড়া হিন্দুদের কথা।

পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে কিন্তু উনারা হিন্দুধর্মের সব নিয়ম মেনে চলবে সঙ্গে মেনে চলবে কুসংস্কারগুলোও। এরা জাতপাতের নিয়ম পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে মেনে চলবে। ছেলে মেয়ের বিয়ে দেওয়ার সময় নিজ বর্ণ, জাত সব যদি না মিলে যায় তবে বিয়েই দিবে না।অফিসে অন্যধর্মের Boss এর লাথি খাবে, এতে তাদের জাত যাবে না। কিন্তু বাড়িতে এসে পাশের বাড়ির হিন্দুটাকে ছোটজাত বলে গালি দিবে।

কিছু হিন্দু আছে যারা ধর্মের কোন নিয়ম না মানলেও জাতপাত ঠিকই মানে। তাদের কাছে জাতপাতই ঈশ্বর, জাতপাত মেনে চলাই ঈশ্বরের উপাসনা।

গোঁড়ার হিন্দুর প্রসঙ্গ ছেড়ে এবার সেকুলার হিন্দুদের প্রসঙ্গে আসা যাক।

সেকুলারের অর্থ ধর্ম নিরপেক্ষ, এটা যথার্থ না। মানুষের ধর্ম মানবতা, কেউ কি কখনো মানবতা থেকে নিরপেক্ষ থাকতে পারে?
সেকুলার মানে হচ্ছে যে যার উপাসনা, প্রার্থনা বিনা বাধায় পালন করবে। প্রার্থনা, ধ্যান এসব হচ্ছে সেই মানবতা বোধ কে জাগ্রত করার পথ।

কিন্তু সেকুলার বলতে আমরা আজকাল বুঝি ধর্ম পালন না করা। আর এটা সবচেয়ে মান্য করে হিন্দুরা। হিন্দু অনেক ছেলেমেয়ে খুবই সেকুলার। এদের কাছে হিন্দুধর্ম কোন ফ্যাক্ট না।
এরা প্রেমের ক্ষেত্রে ধর্মের গন্ডি পেরিয়ে যায়, প্রেম করে বিয়ে করতে গিয়ে নিজের বাবা মায়ের দেওয়া পরিচয় পাল্টিয়ে নিয়ে নেয় নতুন নাম।
কারো কপালে সুখ থাকে কিন্তু অধিকাংশের পরিণতি অপু বিশ্বাস নামের নায়িকার মত হয়ে যায়। প্রেম করার সময় এরা কি কখনো চিন্তা করে যে প্রেমিকের কাছে তার চেয়ে তার রিলিজনের গুরুত্বটা বেশী? আজ যে প্রেমিক অসাম্প্রদায়িক,বিয়ের ক্ষেত্রে সে সবচেয়ে বড় সাম্প্রদায়িক হয়ে দাঁড়াবে? বিয়ের পর জোর করে অন্য রিলিজনের নিয়মনীতি চেপে দিবে সেটা না মেনে নিলে ডির্ভোস নিশ্চিত।
তাছাড়াও ধর্মান্তরিত মেয়েরা প্রতিবাদ করতে পারে না ডির্ভোসের ভয়ে।

যাই হোক ফেসবুকে হিন্দু ছেলে মেয়েরা religious view এ লেখে humanity..
তারা কি বোঝে না সনাতন ধর্ম বলতে মানবতাকেই বোঝায়। আগুনের ধর্ম যেমন দহন করা, মানুষের ধর্ম তেমনি মানবতা। আর সেই ধর্মই হচ্ছে সনাতন।
তবে কেনো নিজেকে হিন্দু না বলে মানবতাবাদী বলে প্রচার করতে হবে? লজ্জা লাগে?
হিন্দুধর্ম কি মানবতার কথা বলে না?
হিন্দুধর্ম বলে মানুষের সেবাই ঈশ্বরের সেবা।

বিবেকানন্দ বলেছেন “গর্বের সঙ্গে বলুন আমি হিন্দু “

কিছু হিন্দু আছে যারা লেখে মানবতাবাদী কিন্তু কাজকর্মে জাতপাতের ছড়াছড়ি।এরা ভন্ড। মহাভন্ড।

হিন্দু ছেলের সাথে হিন্দু মেয়েরা প্রেম করলে বাড়িতে সমস্যা হয় জাতপাতের।কিন্তু অন্য রিলিজনের কারো সাথে প্রেম করলে সব সমস্যা মিটে যায়। সব পিছুটান ছিন্ন করে চলে যায় মুখে চুনকালি মাখিয়ে।
কোন হিন্দু ছেলে বা মেয়ে যদি যোগ্য হয় তবে জাতপাতের কারণে তাকে কেনো মেনে নেওয়া হবে না সেটাই আমার অজানা।

আর প্রেমের বাজারে কেনো সব সময় হিন্দুদেরই ধর্মান্তরিত হতে হয়? ছেলে বা মেয়ে যেই হোক, যখন অন্য রিলিজনের কারো সাথে প্রেম করলেই হিন্দুরাই ধর্মান্তরিত। কারণ কি?

তাদের কি ধর্মের প্রতি টান নেই নাকি ধর্ম নিয়ে জানে না। হিন্দুরা নিজের ধর্ম কে সেরা ভাবতে পারে না বা ছোট থেকে শিখে না নিজের ধর্মই সেরা। ফলে হীনমন্যতায় ভোগে, তাই ধর্ম ত্যাগটা সহজ হয়ে দাড়ায়।

হিন্দুরা হরেকরকমের হয়।
পরের পর্বে আরও লেখবো।

লেখক : অরণ্য

Facebook Comments
35 Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *